অবিশ্বাসী

ইসলাম বর্জন করে প্রকৃত সেক্যুলারিসম চর্চা করবার সময় কী হয়েছে বাংলাদেশের (বা পুরো বিশ্বের)?

মুসলমানদের ওপর গোটা দুনিয়া এত চওড়া কেন? এ প্রশ্ন কখনো ভেবে দেখেছেন? বর্ণবাদ, বৈষম্য বা ভিক্টিমহুডের অজুহাত ব্যাতিরেকে একটু ভেবে দেখলে দেখা যাবে - মুসলিম বিশ্ব আসলে নিজেদের ওপর এই প্রতিনিয়ত আঘাত নিজেরাই ডেকে এনেছে। খুলে বলছি। বাংলাদেশের কথাই...

আমার সম্পর্কে

শিপলু কুমার বর্মন

ব্লগার ও অধিকার কর্মী

আমি শিপলু কুমার বর্মন, নেত্রকোনা জেলার সদর উপজেলায় জন্মগ্রহন করি ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বর মাসে। আমি কোন লেখক বা সাহিত্যিক নই। সমাজের গোঁড়ামি বা কুসংস্কার যখন মানুষের মনকে বিষিয়ে তোলে এবং তার থেকে যখন কোন নির্দিষ্ট সমাজ বা গোষ্ঠীর ক্ষতি সাধন হয় তখনই কোন না কোন ব্যক্তি মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে সমাজের ঐ ভণ্ডামি বা খারাপ কাজগুলোকে আঙ্গুল দিয়ে তুলে ধরতে চায়, আমি তাদের মধ্যে একজন।

গত ১৫-২০ বছর ধরে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন, অগ্নি সংযোগ, প্রতারণা ও হুমকির হার অতি মাত্রায় বেড়ে গেছে। যার ফলে প্রতিনিয়ত সংখ্যালঘুরা বাংলাদেশে কমে যাচ্ছে এবং দেশে ত্যাগে বাধ্য হচ্ছে। আর এর সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত মুসলিম সংখ্যাগুরু সম্প্রদায়ের কিছু অংশ এবং সরকারি দলের কিছু অসৎ দলনেতা। আমাদের পরিবারও বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন, প্রতারণা ও হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে প্রতিনিয়ত। হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি বৈরী ভাবাপন্ন সরাসরি স্বীকার করার মতো সৎ সাহস তাদের নেই বা তারা স্বীকার করতে লজ্জা পান। দেশের সরকার ও মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হবার ভয়ে কোন সরকারই এই অপ্রিয় সত্যটাকে মানতে নারাজ। আর এই অপ্রিয় সত্যটাকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে আমার একটু প্রয়াস বা চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া।